প্রবাস থেকে স্ত্রীর ভিডিও কলে পদ্মা সেতু দেখলেন স্বামী

মাহবুবুল ইসলাম মাহবুবুল ইসলাম , নিজস্ব প্রতিবেদক জাজিরা থেকে
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ২৫ জুন ২০২২

মালয়েশিয়া প্রবাসী আবুল হোসেন। মাত্র দুই বছর হলো দেশ ছেড়েছেন। এর আগে রাজধানীতে যাওয়া-আসায় বেশ ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে তাকে। হয়তো সেই জায়গা থেকেই পদ্মা সেতুর প্রতি অগাধ ভালোবাসা তার। এজন্য সেতু দেখতে আসা স্ত্রীকে ভিডিও কল দিয়ে সুদূর প্রবাস থেকেই পদ্মা সেতু দেখে মনের আবেগ মেটাচ্ছেন তিনি।

পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের যে ভালোবাসা, আগ্রহ ও উদ্দীপনা, তার এমন নিদর্শন মেলে সেতু দেখতে আসা উৎসুক মানুষগুলোর সঙ্গে কথা বলে।

শনিবার (২৫ জুন) বিকেলে পদ্মা সেতু দেখার জন্য শত শত মানুষ এসেছেন জাজিরা প্রান্তে। তবে সেতু খুলে না দেওয়ায় সেতুতে উঠতে পারছেন না কেউই। উঠতে চাইলে বারবার ফিরিয়ে দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ কর্তব্যরত নিরাপত্তাবাহিনীরা। এ নিয়ে আক্ষেপও রয়েছে তাদের।

একাধিক ব্যক্তি জাগো নিউজকে জানান, সকালে তারা প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দেন। বিকেলে সেতু দেখতে আসেন। কিন্তু সেতুতে উঠতে না দেওয়ায় কষ্ট পাচ্ছেন তারা।

সেতুতে উঠতে না পারার কষ্ট মধ্যবয়সী এক নারীরও। দুই সন্তানকে নিয়ে সেতু দেখতে এসেছেন তিনি। নাম জানতে চাইলে কিছুটা আপত্তি জানান তিনি। তবে স্বামীর নাম বললেন, আবুল হোসেন।

আবুল হোসেন দুই বছর ধরে মালয়েশিয়ায় থাকেন। তার স্ত্রী-সন্তান থাকেন শরীয়তপুর সদরেই। আবুল হোসেনের দুই সন্তানসহ তার স্ত্রী পদ্মা সেতু দেখতে এসেছেন। আবুল হোসেনেরও খুব ইচ্ছা, পদ্মা সেতু দেখবেন ও সেতু দিয়ে যাবেন। কিন্তু প্রবাসে থাকায় তা আর সম্ভব হলো না। কিন্তু ভিডিও কলে অন্তত যতটুকু দেখা যায় তাতেই আত্মার প্রশান্তি।

padda-1.jpg

সেতুর মুখে দাঁড়িয়ে প্রবাসে থাকা আবুল হোসনকে ভিডিও কলে সেতু দেখাচ্ছিলেন স্ত্রী। এমন সময় তার সঙ্গে কথা বলে জাগো নিউজ।

জাগো নিউজকে ওই নারী বলেন, আমার স্বামী দুই বছর ধরে মালয়েশিয়া থাকেন। আমরা খুব কষ্ট করে আগে ঢাকায় চলাচল করতাম। তার (আবুল হোসেন) খুব ইচ্ছা ছিল সেতু হলে, সেতু দিয়ে ঢাকা যাবে। কিন্তু সে তো এখন দেশে নেই।

ওই নারী আরও বলেন, উনি (আবুল হোসেন) খবরে দেখেছেন যে, সেতু খুলে দিচ্ছে। আমিও দেখতে এসেছি। তিনিও দেখতে চেয়েছিলেন। তাই আমি ভিডিও কলে তাকে দেখালাম।

শনিবার (২৫ জুন) আনুষ্ঠানিকভাবে সেতু উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে জনসাধারণের জন্য সেতু খুলে দেওয়া হবে রোববার সকালে।

এমআইএস/আরএডি/এমএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]