১০০ গুজব রটনাকারী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ২৮ জুলাই ২০১৯

পদ্মা সেতু নির্মাণে মাথা লাগবে- এমন গুজব ছড়ানোর পর সারাদেশে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অনেক নিরীহ মানুষের প্রাণ গেছে। তবে এ বিষয়ে সরকারও বসে নেই। এখন পর্যন্ত ১০০ জন গুজব রটনাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

জাতীয় শোক দিবস পালন-সংক্রান্ত সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সংশ্লিষ্টদের প্রস্তুতিমূলক সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব বলেন। রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে মন্ত্রীর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গুজব বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এ দেশের ভালো হোক, এ দেশ এগিয়ে যাক এটা অনেকেই চান না। স্বাধীনতার সময়ে যারা স্বাধীনতার বিরোধিতা করেছিল তারাই আমাদের দেশের ক্ষতি করার জন্য অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টিতে তৎপর থাকে। তবে এগুলোকে আমরা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আনতে পেরেছি। জনগণ তাদের আসল রূপটা বুঝতে পেরেছে। তাই জনগণ তাদের এসব কর্মকাণ্ড বা গুজব বিশ্বাস করে না।’

তিনি বলেন, ‘গুজবের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণ মোটেই বিলম্ব হবে না। এটা হাস্যকর গুজব। এর আগেও যমুনা নদীতে বঙ্গবন্ধু সেতু, মেঘনা নদীতে সেতু নির্মাণ করেছি। এসব ক্ষেত্রে তো কোনো রক্ত লাগেনি। তবে কেন এই পদ্মা সেতুর ব্যাপারে এ ধরনের গুজব? যারা পদ্মা সেতু চায়নি তারা মনে করছেন এসব গুজব রটালেই মনে হয় পদ্মা সেতু বন্ধ হয়ে যাবে। পদ্মা সেতু হচ্ছে, নির্দিষ্ট শিডিউল অনুযায়ীই পদ্মা সেতু জনগণের জন্য খুলে দেয়া হবে।’

গুজবের ঘটনা এখন নিয়ন্ত্রণে কি না? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সেই চিহ্নিত লোকগুলোই গুজব করছেন। এ বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যবস্থা নিচ্ছে। ১০০ জনের মতো গুজব রটনাকারীকে আমরা ধরে ফেলেছি। গুজব ধীরে ধীরে কমে আসছে। এটা আরও কমে যাবে। কারণ সাধারণ জনগণ এগুলোকে বিশ্বাস করে না।’

এ ধরনের গুজব সৌদি আরব থেকে রটানো হচ্ছে- এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশি কোনো শক্তি আমাদের দেশে এ ধরনের ঘটনা ঘটায় না। আমাদের দেশের কিছু দুষ্কৃতিকারীই এটা করে। আমরা যখন তাদের চিহ্নিত করি তখন তারা বিভিন্ন কৌশলে দেশ ত্যাগ করে। তারা বিদেশে গিয়েও এ ঘটনাগুলো ঘটাচ্ছে। তাদের আইনের আওতায় আনার জন্যও দেশে নিয়ে আসছি। যেখানেই তারা অবস্থান করুক তাদের চিহ্নিত করে দেশে এনে আইনের আওতায় নিয়ে আসব। দেশের বিরুদ্ধে কাজ করতে কাউকে অ্যালাও করব না।’

এদিকে এখন পর্যন্ত গোয়েন্দা রিপোর্ট অনুযায়ী শোক দিবস ও ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে নাশকতার কোনো আশঙ্কা নেই বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

এমইউএইচ/বিএ/পিআর

টাইমলাইন