ভারতের হামলায় মাত্র ১ জন আহত : পাকিস্তানের গ্রামবাসী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১১ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি গোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের বেশ কয়েকটি ঘাঁটি ও লঞ্চ প্যাডে হামলা চালিয়ে ৩শ জঙ্গিকে হত্যার দাবি করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। কিন্তু পাকিস্তানের ওই এলাকার গ্রামবাসী বলছে, ভারতীয় বিমান বাহিনীর ওই হামলায় মাত্র একজন আহত হয়েছে। খবর রয়টার্স।

গ্রামবাসী আরও জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোরে চারবার ব্যাপক বিস্ফোরণের শব্দ পেয়েছেন তারা। তবে এই ঘটনায় কেউ নিহত হয়নি। প্রত্যক্ষদর্শী ২৫ বছর বয়সী মোহাম্মদ আজমল বলেন, আমরা বেশ কিছু গাছ ভেঙে পড়তে দেখেছি এবং একটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হতে দেখেছি। সেখানে বোমা নিক্ষেপ করায় চারটি গর্ত তৈরি হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন: মুখোমুখি পাক-ভারত: জরুরি বৈঠকে ইমরান খান

মঙ্গলবার সকালে ভারতের বেশ কিছু গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়, পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জবাবে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হামলায় অন্তত ৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। পরবর্তীতে পাকিস্তানের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। তবে দেশটির তরফ থেকে হতাহতের খবর প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

পাক সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। তারা মুজাফফরাবাদ সেক্টরে অনুপ্রবেশ করেছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পরপরই বেশ কয়েকটি টুইট করেছেন তিনি।

আর পড়ুন: পাকিস্তানের ড্রোন ভূপাতিত করেছে ভারত

এক টুইট বার্তায় তিনি দাবি করেছেন, ভারতীয় সামরিক বিমান তাদের আকাশসীমা লঙ্ঘন করার পর পাকিস্তানি জঙ্গি বিমানের ‘তাড়া খেয়ে পালানোর’ আগে বালাকোটের কাছে ‘বোমা ফেলে’ গেছে। এই ঘটনায় কোনো হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

পরবর্তীতে আরও এক টুইটে তিনি জানিয়েছেন, সময়মত উপযুক্ত সাড়া দিয়েছে পাকিস্তানের বিমান বাহিনী। ফলে পাক বাহিনীর তাড়া খেয়ে পালাতে বাধ্য হয়েছে ভারতীয় সেনারা।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে ১২টি মিরাজ ২০০০ যুদ্ধবিমান দিয়ে পাক জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে এক হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী।

টিটিএন/এমএস

টাইমলাইন