রক্তাক্ত শ্রীলঙ্কায় ফের বিস্ফোরণ, লাফিয়ে বাড়ছে নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১৭ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০১৯

শ্রীলঙ্কায় ছয়টি স্থাপনায় ভয়াবহ বোমা হামলার পর আবারো একটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। দেশটির রাজধানী কলম্বোর কাছের দেহিওয়ালা এলাকায় সপ্তম এই বিস্ফোরণে অন্তত দু'জন নিহত হয়েছে বলে ফরাসী বার্তা সংস্থা এএফপি।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। এর আগে রোববার সকালের দিকে রাজধানী কলম্বোর তিনটি বিলাসবহুল হোটেল ও তিনটি গীর্জায় মোট ছয়টি বিস্ফোরণ হয়। এতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৮৫ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরো চার শতাধিক।

ইস্টার সানডের সকালে কলম্বোর বিলাসবহুল সিনামুন গ্রান্ড, শাঙ্গরি-লা ও কিনসবুরি হোটেল ও কলম্বোর সেন্ট অ্যান্থনি গীর্জা, নেগোমবোর সেন্ট সেবাস্তিয়ান গীর্জা ও বাত্তিকালোয়ার জিওন গীর্জায় ওই হামলা হয়েছে। দেশটির পুলিশের প্রধান বলেছেন, তিনি এই হামলার ব্যাপারে ১০দিন আগেই সরকারকেই সতর্ক করে দিয়েছিলেন।

তিনি দেশটির প্রধান এবং প্রসিদ্ধ গীর্জাগুলো ইস্টার সানডের দিনে আক্রান্ত হতে পারে বলে ওই সতর্কবার্তায় জানান। ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপি পুলিশ কর্মকর্তার সতর্কবার্তার একটি কপি হাতে পেয়েছে।

srilanka

রোববার সকাল ৮টার দিকে প্রথম বিস্ফোরণের খবর আসে। সময় যত গড়িয়ে যাচ্ছে নিহতের সংখ্যা ততই লাফিয়ে বাড়ছে। দেশটির ইতিহাসে এই হামলাকে কালো অধ্যায় হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। হামলার পর রাজধানী কলম্বো-সহ পুরো দেশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

আক্রান্ত গীর্জা ও হোটেলে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। হামলায় নিহতদের মধ্যে অন্তত ৩৫ জন বিদেশি নাগরিক রয়েছেন। এই হামলায় কোনো বাংলাদেশি হতাহত হয়েছেন কি-না তা এখনো জানা যায়নি।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী কিংবা ব্যক্তি রোববারের এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে হামলার পেছনে আত্মঘাতী বোমারুরা জড়িত থাকতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।

এসআইএস/এমএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]