হামলাকারীরা স্বচ্ছল পরিবারের, পড়াশোনা করেছেন অস্ট্রেলিয়া-ব্রিটেনে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৯ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৯

শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, গত রোববার ইস্টার সানডে উদযাপনের সময় গির্জা ও হোটেলে ভয়াবহ বোমা হামলার ঘটনায় জড়িতদের মধ্যে একজন অস্ট্রেলিয়া এবং ব্রিটেনে পড়াশোনা করেছেন। আইএসের কর্মকাণ্ড থেকে উৎসাহিত হয়ে এবং জঙ্গিদের অর্থায়নে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে উল্লেখ করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুয়ান উইজেওয়ারডেন। আরও হামলা চালানো হতে পারে বলেও আশঙ্কাও ব্যক্ত করেছেন তিনি।

স্থানীয় সময় বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুয়ান উইজেওয়ারডেন বলেন, আমাদের ধারণা আত্মঘাতী হামলাকারীদের একজন ব্রিটেনে লেখাপড়া করেছেন। পরে তিনি অস্ট্রেলিয়া থেকে
স্নাতকোত্তর অর্জন করেন। এরপরেই শ্রীলঙ্কায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন।

আত্মঘাতী হামলাকারীদের বেশিরভাগেরই বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিল, কেউ কেউ বিদেশে বসবাস করছিল বা সেখানে পড়াশোনা করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুয়ান উইজেওয়ারডেন।

আত্মঘাতী হামলাকারীদের ওই দলটির বেশিরভাগই শিক্ষিত এবং তারা মধ্যবিত্ত বা উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের। তারা অর্থনৈতিকভাবে স্বচ্ছল এবং তাদের পারিবারিক অবস্থাও ভালো বলে ধারণা করা হচ্ছে। এটা একটি চিন্তার বিষয় বলে উল্লেখ করেছেন রুয়ান উইজেওয়ারডেন।

তিনি বলেন, আমার ধারণা হামলাকারীদের মধ্যে বেশ কয়েকজন বিভিন্ন দেশে পড়াশোনা করেছে। তারা বিভিন্ন দেশ থেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন, ডিগ্রিও অর্জন করেছেন।

attack-2

তিনটি গির্জা, তিনটি হোটেল এবং আরও বেশ কয়েকটি স্থানে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৩৫৯ জনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

সিরিজ বোমা হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। গত রোববার সকালের ভয়াবহ ওই হামলায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত পাঁচ শতাধিক মানুষ। দক্ষিণ এশিয়ার ইতিহাসে এটাই ছিল সবচেয়ে ভয়াবহ সিরিজ বোমা হামলা।

শ্রীলঙ্কায় নিহতদের মধ্যে ৩৮ জন বিদেশি আছেন বলে এখন পর্যন্ত জানা গেছে। তাদের মধ্যে একজন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই শেখ সেলিমের নাতি। ভয়াবহ ওই বোমা হামলার সময় শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছিলেন শেখ সেলিমের মেয়ে ও জামাতা। ভয়াবহ ওই সিরিজ হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন হিসেবে ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

টিটিএন/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]