শ্রীলঙ্কায় হামলা : সেই ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের আঁতুরঘর ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:০৭ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের সকালে ৩২১ জনের প্রাণ কেড়ে নেয়া হামলায় যে ইসলামি চরমপন্থী দলটি জড়িত বলে দাবি করেছেন দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা; সেই ন্যাশনাল তাওহীদ জামাত (এনটিজে) দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিল ভারতের তামিলনাড়ুতে।

মঙ্গলবারও লঙ্কান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সংসদে দেয়া এক বক্তৃতায় বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে তারা দেখতে পেয়েছেন, হামলার সঙ্গে ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। তার দাবি, গত ১৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে হামলায় ৫০ জনের প্রাণহানির ঘটনার প্রতিশোধ নিতে কলম্বোতে সিরিজ বোমা হামলা চালানো হয়েছে। এমনকি সংসদে তিনি সন্দেহভাজন হামলাকারী হিসেবে এনটিজের নামও প্রকাশ করেছেন।

হামলার পর থেকে ঘুরে ফিরে আসছে এই সংগঠনের নাম। যার সঙ্গে জুড়ে আছে ভারত এবং তামিলনাড়ু।

এনটিজের আঁতুরঘর তামিলনাড়ু

২০০৪ সালের ১৬ মে। ওইদিন ভারতের তামিলনাড়ুতে জন্ম ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের। ভারত, শ্রীলঙ্কা-সহ এখন সতেরোটি দেশে দলটির শাখা রয়েছে। গত বছর চেন্নাইয়ে এক মার্কিন নাগরিককে মারধরের অভিযোগ উঠেছিল এই সংগঠনের বিরুদ্ধে।

লঙ্কা বিতর্ক

শ্রীলঙ্কায়ও এই সংগঠনের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। দুই বছর আগে বৌদ্ধ ধর্মের বিরুদ্ধে মন্তব্যের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছিল শ্রীলঙ্কা ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের সম্পাদক আবদুল রাজ্জাককে। গত বছর বৌদ্ধ স্থাপত্য ভাঙচুরের অভিযোগ উঠে এই সংগঠনের বিরুদ্ধে।

লঙ্কায় সাত শতাংশের কিছু বেশি মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের বসবাস। অধিকাংশই সুন্নি। ভাষাগত, জাতিগত বিদ্বেষের ইতিহাস শ্রীলঙ্কায় পুরনো। কিন্তু ধর্মীয় সহিংসতার নজির সে দেশে খুব একটা ছিল না। সে কারণেই তামিলনাড়ু ন্যাশনাল তাওহীদ জামাতের উগ্রপন্থী নেতা পি জয়নুল আবেদিন যখন শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার কথা ছিল, তখন রাস্তায় নেমে তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন মুসলিমদেরই একাংশ।

সিরিয়া ফেরত জিহাদি?

রোববারের হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো সংগঠন। এনটিজে জড়িত নয় বলে দাবি করেছেন, শ্রীলঙ্কার পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের গভর্নর মেহমুদ লেব্বে আলিমও। অথচ দশ দিন আগেই শ্রীলঙ্কার পুলিশ প্রধান সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলার সতর্কতা দিয়েছিলেন।

শ্রীলঙ্কার ভারতীয় দূতাবাসেও আত্মঘাতী হামলার আশঙ্কা করেছিলেন পুলিশ প্রধান জয়সুন্দর। বিশেষজ্ঞদের দাবি, সিরিয়া ফেরত জঙ্গিরা এই সংগঠনটিতে আস্তানা গড়েছে। যে দুই আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে; তারা হলেন জাহরান হাসিম এবং আবু মহম্মদ। জি নিউজ।

এসআইএস/জেআইএম

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :