জেনারেল সোলেইমানি হত্যায় ভয়াবহ যুদ্ধের শঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১৪ পিএম, ০৩ জানুয়ারি ২০২০

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হামলা চালিয়ে ইরানের বিপ্লবী গার্ডের প্রধানসহ আটজনকে হত্যা করা হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে যুক্তরাষ্ট্র ওই হামলা চালিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পেন্টাগন।

পেন্টাগন জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশেই ওই হামলা চালানো হয়েছে। ইরানের ভবিষ্যত হামলা প্রতিহত করতেই এই অভিযান চালানো হয়েছে। পেন্টাগন বলছে, জেনারেল সোলেইমানি ইরাকে মার্কিন কূটনীতিক এবং কর্মকর্তাদের ওপর হামলার পরিকল্পনা করছিলেন। জেনারেল সোলেইমানি এবং তার কুর্দস বাহিনী শত শত মার্কিনি এবং জোটের সদস্যের হতাহতের পেছনে দায়ী বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে ওই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন ইরাকের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদেল মাহদি। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের চালানো ওই হামলাকে আগ্রাসন বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। সতর্ক করে তিনি বলেছেন, জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনা ভয়াবহ যুদ্ধের দিকে ধাবিত করবে।

ওই হামলায় জেনারেল কাসেম সোলেইমানি ছাড়াও ইরাকি মিলিশিয়া কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসও নিহত হয়েছেন। এক বিবৃতিতে কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসের নিহত হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে আবদেল মাহদি বলেন, ইরাকি সামরিক কমান্ডারকে গুপ্তহত্যা ইরাক, এর জনগণ এবং সরকারের বিরুদ্ধে আগ্রাসন।

অপরদিকে, সোলেইমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় ইরাক ত্যাগের জন্য মার্কিন নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। যতদ্রুত সম্ভব ইরাক ত্যাগ করতে বলা হয়েছে। শুক্রবার ভোরে গাড়িতে করে বাগদাদ বিমানবন্দর ত্যাগ করার সময় মার্কিন হামলায় নিহত হয়েছেন জেনারেল সোলেইমানি।

টিটিএন/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]