ইরাকে ব্যর্থ হয়েছে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৩১ পিএম, ০৮ জানুয়ারি ২০২০

ইরাকের মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় প্রতিহত করতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ইরাকের পশ্চিমাঞ্চলের আইন আল আসাদ এবং কুর্দিস্তানের এরবিলে অবস্থিত মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে ইরান। এই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিশোধ নেয়ার চেষ্টা করা হলে ওই অঞ্চলে মার্কিন মিত্ররা আক্রান্ত হবে বলেও হুমকি দিয়েছে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী।

ইরাকি সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে যে, বুধবার প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে হামলা চালানো হয়েছে। ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ২২টি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছিল। এর মধ্যে ১৭টি আল আসাদ বিমান ঘাঁটিতে আঘাত হেনেছে। এছাড়া বাকি পাঁচটি উত্তরাঞ্চলীয় ইরবিলে আঘাত হেনেছে।

এদিকে ইরানের দাবি, মার্কিন ঘাঁটিতে আঘাত হানা একটি ক্ষেপণাস্ত্রও প্রতিহত করা সম্ভব হয়নি। ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বলছে, ইরাকি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করতে ব্যর্থ হয়েছে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলের খবরে বলা হয়েছে, ঘাঁটি লক্ষ্য করে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করতে পারেনি মার্কিন সেনাবাহিনী। বার্তাসংস্থা রয়টার্স বলছে, ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সরঞ্জাম ও হেলিকপ্টার ভয়াবহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

বুধবার মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার পর ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, এই অঞ্চলে কোনো ধরনের যুদ্ধ কিংবা উত্তেজনা চায় না তেহরান। আত্মরক্ষার অংশ হিসেবে ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ইরাকে দু'টি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনায় কমপক্ষে ৮০ মার্কিন সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরানের রাষ্ট্রীয় এক টেলিভিশন। তবে ইরানের হামলায় হতাহত কিংবা ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি যুক্তরাষ্ট্র।

টিটিএন/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]