মাথায় ডিম ভাঙার পর সিনেটরের বিরুদ্ধে মামলা ও বহিষ্কারের দাবি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:১৪ পিএম, ১৭ মার্চ ২০১৯

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বন্দুক হামলা করেন অস্ট্রেলিয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট। শুক্রবারের সেই হামলায় এখন পর্যন্ত ৫০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সেই সন্ত্রাসী হামলায় মুসলিম অভিবাসনকে দায়ী করে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে ডিম হামলার শিকার হন অস্ট্রেলিয়ার কট্টর ডানপন্থী এক সিনেটর।

অভিবাসনের কারণে ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলায় ৪৯ জনের প্রাণ গেছে বলে মন্তব্য করেন অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের সিনেটর ফ্রেজার অ্যানিং। এমন মন্তব্যের পর বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। আর এরই মধ্যে মেলবোর্নে এক সংবাদ সম্মেলনে তার মাথায় ডিম দিয়ে আঘাত করেন অজ্ঞাত এক কিশোর।

সিনেটরের মাথায় ডিম ভাঙ্গার সেই ভিডিও মুহূর্তেই গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। সেই ভিডিওতে কিশোরের প্রতি সিনেটর অ্যানিংয়ের আক্রোশের দৃশ্যও দেখা যায়। সিনেটরের নিরাপত্তায় নিয়োজিত ব্যক্তিরা সেই কিশোরের ওপর হামলে পড়েন। সেসব দৃশ্য দেখে আরও বিপাকে পড়েছেন অস্ট্রেলীয় রাজনীতিক।

নিউজিল্যান্ডের সংবাদমাধ্যম নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড রোববার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ১৭ বছরের এক কিশোরের ওপর হামলা ও তাকে নোংরা কথা বলার জন্যে সিনেটর ফ্রেজার অ্যানিংয়ের বিরুদ্ধে মামলা করার দাবি তুলছে অস্ট্রেলিয়ার জনগণ।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে দেশটির অন্তত ৫ লাখ ব্যক্তি আবেদন করেছেন সেই রাজনীতিবিদকে পার্লামেন্ট থেকে বহিষ্কার করার। একই সঙ্গে সেই কিশোরকে দেয়া হচ্ছে বীরের সম্মান।
সেই কিশোরের ওপর সিনেটর ও তার নিরাপত্তারক্ষীদের আক্রমণকে নিষ্ঠুর বলে অভিহিত করেছেন অনেকেই। অস্ট্রেলিয়ার সিনেটর ডেরিন হিঞ্চ এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘সিনেটর অ্যানিংয় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলে তার প্রবৃত্তিগতভাবে। কিন্তু, তার গুণ্ডাদের প্রতিক্রিয়া ছিলো মাত্রাতিরিক্ত।’

ভিক্টোরিয়া প্রদেশের পুলিশ জানিয়েছে তারা পুরো ঘটনাটির তদন্ত করছে। এদিকে, একটি তহবিল সংগ্রহকারী সংস্থা কিশোরের পক্ষে আইনি লড়াই এবং আরও ডিম কেনার জন্যে অর্থ সংগ্রহ করতে শুরু করেছে।

অস্ট্রেলিয়ার সব রাজনৈতিক দল, মূলস্রোতের গণমাধ্যমের পাশাপাশি দেশটির প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনও সিনেটর অ্যানিংয়ের তীব্র সমালোচনা করেছেন। সিনেটর অ্যানিংকে উদ্দেশ্য করে কেউ কেউ বলেছেন, ‘তরুণ প্রজন্ম লড়াইটা চালিয়ে যাবে’।

এসএ/জেআইএম

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :