ভোট ঘিরে নারায়ণগঞ্জে উৎসবের আমেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:২৪ এএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২

প্রায় সোয়া পাঁচ লাখ ভোটারের নগরী নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা আর উৎসবের আমেজে ভোটগ্রহণ চলছে। সকাল ৮টায় ভোট শুরুর পর ভোটারদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে আনন্দঘন পরিবেশে ফিরতে দেখা গেছে। ভোট ঘিরে পুরো শহর উৎসবময় হয়ে উঠেছে।

এদিন ভোট শুরুর আগে থেকেই বিভিন্ন কেন্দ্রে জড়ো হতে থাকেন ভোটাররা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতিও বাড়তে থাকে। ভোট শুরুর প্রথম আড়াই ঘণ্টায় সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

২৭টি সাধারণ ওয়ার্ড এবং ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডসহ ১৯২টি ভোটকেন্দ্রে মোট ভোটার ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৬১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৫৯ হাজার ৮৪৬ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৫৭ হাজার ৫১১ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ৪ জন। সব কেন্দ্রে ভোট হচ্ছে ইভিএম পদ্ধতিতে।

jagonews24

ভোট ঘিরে সকাল থেকে প্রতিটি কেন্দ্রের সামনে প্রার্থী, সমর্থক ও ভোটারদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। ভোটকেন্দ্রের বাইরে শহরের বিভিন্ন অলিগলিতেও ভোটের উত্তাপ বিরাজ করছে।

এবারের নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে ভোটে লড়ছেন বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। ভোটের মাঠে তার অন্যতম প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি থেকে অব্যাহতি পাওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৯, ১০ ও ১১ ওয়ার্ডের বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে জাগো নিউজের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মফিজুল সাদিক জানিয়েছেন, প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে। ভোটাররা উৎসবমুখর পরিবেশে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছেন। এখনো পর্যন্ত (সকাল সাড়ে ১০টা) কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

jagonews24

নগরীর ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক মুসা আহমেদ জানান, বেশ উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে। কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতিও বেশ ভালো। প্রথম ঘণ্টাতেই ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের শিশুবাগ বিদ্যালয়ে ৪ শতাংশ ভোট পড়েছে।

শিশুবাগ বিদ্যালয়ের নারী কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার নারায়ণ চন্দ্র মন্ডল জাগো নিউজকে বলেন, নারীদের আঙুলের ছাপ মিলাতে কিছুটা দেরি হচ্ছে। তবে কেন্দ্রে প্রচুর ভোটার উপস্থিতি রয়েছে। তার কেন্দ্রে মোট ভোটার দুই হাজার ৬৮ জন। এর মধ্যে এক নম্বর বুথে ভোট দিয়েছেন ১২ জন, দুই নম্বর বুথে ১৮ জন, তিন নম্বর বুথে ২১ জন, চার নম্বর বুথে ১৮ জন ও পাঁচ নম্বর বুথে ১৩ জন।

বন্দর থানার আওতাভুক্ত ২১ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ড ঘুরে ভোটের পরিবেশ দেখছেন জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক আবদুল্লাহ আল মিরাজ। তিনি জানান, প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি রয়েছে। কোনো প্রকার বিঘ্ন ছাড়াই প্রথম আড়াই দুই ঘণ্টায় পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা। প্রার্থীদের কোনো অভিযোগ নেই।

jagonews24

সিদ্ধিরগঞ্জের আওতাভুক্ত ১, ২, ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড ঘুরে জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক তৌহিদুজ্জামান তন্ময় জানান, এখানকার প্রতিটি ওয়ার্ডে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। কোনো ধরনের বাধা-বিপত্তি ছাড়াই উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা।

তিনি বলেন, প্রথম দুই ঘণ্টার ভোটার, প্রার্থী, সমর্থকদের কারো কাছ থেকে কোনো ধরনের অভিযোগের খবর পাওয়া যায়নি। প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে যথেষ্ট ভোটার উপস্থিতি রয়েছে। ভোটগ্রহণ শুরুর আগেই ভোটাররা কেন্দ্রে উপস্থিতি হয়েছেন। বেলা বাাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটার উপস্থিতিও বাড়ছে।

নারায়ণগঞ্জ নগরীর প্রাণকেন্দ্র চাষাড়ার বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক রাসেল মাহমুদ জানান, সিটি করপোরেশনের ভোট ঘিরে চাষাড়া এলাকায় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। ভোটাররা নির্বিঘ্নে ভোট দিচ্ছেন। ভোটকেন্দ্রের বাইরে প্রার্থীর সমর্থকরা সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে অবস্থান করছেন।

jagonews24

এদিকে ইভিএমে ভোট দিয়ে বেশ সন্তোষ প্রকাশ করতে দেখা যাচ্ছে ভোটারদের। পঞ্চাশোর্ধ্ব রাশিদা বেগম নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিয়ে জাগো নিউজকে বলেন, এবার নিয়ে তিনবার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচনের ভোট দিলাম। এর আগে ব্যালট পেপারে সিল মেরে ভোট দিয়েছি। এবারই প্রথম ইভিএম মেশিনের মাধ্যমে ভোট দিলাম।

তিনি বলেন, ইভিএমে ভোট দেওয়া খুবই সহজ। ভোট দিতে কোনো ধরনের সমস্যা হয়নি। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পেরেছি। আশা করি, আমার পছন্দের প্রার্থীরা বিজয়ী করবেন। ব্যালটের চেয়ে ইভিএম পদ্ধতিই ভালো। ভোট দিতে কোনো ঝামেলা নেই।

বয়স্কদের পাশাপাশি তরুণরাও ইভিএমে ভোট দিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন। স্নাতকোত্তর পড়ুয়া শিক্ষার্থী সানজিদা ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ইভিএমে খুব সহজেই ভোট দিয়েছি। কোনো ধরনের সমস্যা হয়নি। ভোটকেন্দ্রে ভিড় কম। তাই কেন্দ্রে আসার সঙ্গে সঙ্গে ভোট দিতে পেরেছি।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আমার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়েছি। আশা করি মেয়র ও কাউন্সিলর পদে যাদের কে ভোট দিয়েছে সবাই পাস করবেন।

jagonews24

বানু মন্ডল নামের আর এক ভোটর বলেন, সকাল সাড়ে ৮টায় ভোট দিয়েছি। নিজের ভোট দেওয়া শেষে স্ত্রীকে ভোট দিতে নিয়ে আসলাম। পরিবেশ ভালোই। কোনো ঝামেলা হয়নি।

আর এক ভোটার মো. আবুল হোসেন বলেন, কোনো ঝামেলা নাই। নিরাপত্তা বেশ ভালো রয়েছে। যোগ্য প্রার্থীরা জিতুক।

আইরিন সুলতানা নামের এক ভোটার বলেন, ভোট দিয়ে ভালো লাগছে। সিলের চেয়ে বেশি সহজ ইভিএমএ। কোনো ঝামেলা নাই। সকালেই এলাম যেন কোনো ঝামেলায় না পড়ি। লাইন ধরতে হয়নি। তাড়াতাড়ি ও সহজে ভোট দিতে পেরেছি।

নারায়ণগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজ ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আবুল কালাম আজাদ জাগো নিউজকে বলেন, নির্ধারিত সময় সকাল ৮টা থেকেই আমরা ভোটগ্রহণ শুরু করেছে। ভোটাররা উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিয়ে যাচ্ছেন। এখানে পরিবেশ বেশ ভালো। কোনো ধরনের সমস্যা নাই।

এদিকে ভোটকেন্দ্রের বাইরেও পুরো নারায়ণগঞ্জ শহরজুড়ে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সংলগ্ন একটি হোটেলের কর্মী মিলন বলেন, ভোটের আগে মনে হয়েছিল ভোটের দিন নারায়ণগঞ্জ শহরে উত্তেজনাকর পরিবেশ বিরাজ করবে। তবে এখনো পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ শহরের পরিবেশ বেশ ভালো। শহরের মানুষরা হাসিমুখে ভোট দিতে যাচ্ছেন।

২০১১ সালে নির্দলীয় ভোটে আওয়ামী লীগ দলীয় নেতাদের সমর্থনপুষ্ট এ কে এম শামীম ওসমানকে এক লাখের বেশি ভোটে হারিয়ে দেশের প্রথম নারী মেয়র হয়েছিলেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। ২০১৬ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে নৌকার মনোনয়ন নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচিত হন। ফলে এবারের নির্বাচনের ফলাফল নিজের পক্ষে থাকালে নারায়ণগঞ্জের মেয়র হিসেবে হ্যাট্টিক জয় পাবেন আইভী।

পরের বার ২০১৬ সালে দলীয় প্রতীকে আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে আইভী বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানকে পৌনে এক লাখ ভোটে হারিয়ে দেন। নারায়ণগঞ্জের মেয়র নির্বাচিত হওয়ার আগে আইভী আট বছর নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

এবারের নির্বাচনে এই হেভিওয়েট প্রার্থীর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি থেকে আহ্যাহতি পাওয়া হাতি প্রতীকের প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। এবার নির্বাচনে নেমে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ হারানো তৈমূর ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। তবে পরবর্তীতে দলের নির্দেশে ভোট থেকে সরে দাঁড়ান তিনি।

বিস্ফোরকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় ২০১৮ সালে গ্রেফতার হওয়া এই বিএনপি নেতা এবার দলীয় নির্দেশ অমান্য করেই প্রথমবারের মতো নারায়ণগঞ্জ সিটি কপোরেশনের নগরপিতা হওয়ার আশায় নির্বাচনের মাঠে নেমেছেন।

নাসিক নির্বাচনে এবার আইভী ও তৈমূর ছাড়াও মেয়র পদে আরও পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সংরক্ষিত ৯টি ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন এবং ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোটে লড়ছেন ১৪৮ জন। মোট ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১৯২টি।

এমএএস/এমকেআর/এমএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]