বিশৃঙ্খল পরিবেশ, প্রিসাইডিং অফিসারের অসহায়ত্ব প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১১ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২২

বহুল আলোচিত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে চলছে ভোটগ্রহণ। এর মধ্যে ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের শান্তিনগর প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নারীদের ভোটগ্রহণে দেরি এবং বিশৃঙ্খল পরিবেশের কারণে অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন প্রিসাইডিং অফিসার।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) বিকেল ৩টায় ভোটগ্রহণের শেষ বেলায় এসে এ অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার নাহিদুল ইসলাম।

তিনি বলেন, একজন নারী ভোটার ২০ মিনিটও সময় লাগাচ্ছে। আমি অসহায়। নারীদের অনেক চেষ্টা করে লাইনে রাখা যায় না। তারা একেবারেই বোঝে না। তারা চায় আমরা তাদের ভোট দিয়ে দেই। আমাদের ডাকে ভোট কীভাবে দেবে দেখিয়ে দেওয়ার জন্য।

jagonews24

সরেজমিনে দেখা যায়, শান্তিনগর প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বুথ আছে আটটি। তার মধ্যে নারীদের জন্য চারটি ও পুরুষদের জন্য চারটি। দুটি বুথ অস্থায়ী। অস্থায়ী বুথে পুরুষরা লাইনে দাঁড়িয়ে শৃঙ্খলার সঙ্গে ভোট দিলেও অন্য বুথগুলোতে রয়েছে বিশৃঙ্খল অবস্থা। সেখানে নারীদের বুথে নেই কোনো লাইন। ফলে ভোটগ্রহণে চলছে ধীরগতি।

এখানে ভোটারদের এই বিশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খেতে হচ্ছে কর্তব্যরত পুলিশ-আনসারদের। ভোটারদের অভিযোগ তিন-চার ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়েও দিতে পারেননি ভোট।

jagonews24

এক ভোটার অভিযোগ করে বলেন, সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ইভিএম মেশিনের জটিলতায় ভোট দিতে পারিনি। হাতের চাপ দিলে নাম ও ছবি আসলেও আমাকে বুথ থেকে বলে সমস্যা হচ্ছে পরে আসেন।

এ বিষয়ে প্রিসাইডিং অফিসার জানান, মাঝে মাঝে নাম আসলেও ভোটগ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না। এরকম সমস্যায় আরও পাঁচজন ভোট দিতে পারেননি। আমরা তাদের বলেছি পরে ফাঁকা সময়ে আসতে।

তিনি আরও বলেন, দেরি হওয়ায় অনেক ভোটার ফিরেও যাচ্ছেন। তবে এখানে ভোটার সংখ্যা তিন হাজার ১৮১। এই পর্যন্ত (বিকেল ২টা ৪০ মিনিটি) ৪০ শতাংশ ভোটগ্রহণ হয়েছে।

এএএম/জেডএইচ/জিকেএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]