অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তিন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩৭ পিএম, ২৮ মার্চ ২০১৯

বনানীর বহুতল ভবন এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় স্বরাষ্ট্র, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ এবং গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বৃহস্পতিবার রাতে এসব কমিটি গঠন করা হয়।

স্বরাষ্ট্র ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের কমিটিকে আগামী ৭ কার্যদিবস এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটিতে আগামী ৩ এপ্রিলের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাত ১১টা পর্যন্ত ১৯ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত ৭০ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সন্ধ্যার কিছু পর আগুন নিভে গেলেও ভবনের ভেতরে উদ্ধার কাজ চলছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অগ্নিদুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান এবং দুর্ঘটনার সার্বিক বিষয়ে সরেজমিন তদন্ত করে মতামত ও সুপারিশসংবলিত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব তরুণ কান্তি শিকদারকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদতরের মহাপরিচালকের একজন প্রতিনিধি, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রতিনিধি (যুগ্মসচিব পর্যায়ের), ঢাকা জেলা প্রশাসকের একজন প্রতিনিধি (অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক পর্যায়ের), গুলশান জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার ও সুরক্ষা সেবা বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান ভূইয়া।

কমিটিকে অগ্নিকাণ্ডের উৎস ও কারণ নির্ণয় এবং এ জাতীয় ভয়াবহ অগ্নিদুর্ঘটনা প্রতিরোধে ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নির্ধারণের বিষয়ে সুপারিশসংবলিত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি নয় সদস্যের। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফয়জুর রহমানকে আহ্বায়ক করে এই কমিটি করা হয়।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত এফআর টাওয়ারের পাশে হোটেল সেরিনার লবিতে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এসব তথ্য জানান।

কমিটিতে সদস্য হিসেবে ঢাকা জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, বুয়েট এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের একজন করে প্রতিনিধি রাখা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের একজন পরিচালক কমিটিতে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন।

অপরদিকে অগ্নিদু্ঘটনার শিকার এফআর টাওয়ারের নকশা অনুমোদন এবং নির্মাণসংক্রান্ত কোনো কাজে ত্রুটি-বিচ্যুতি আছে কি না তা তদন্ত করতে ছয় সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রাতে জানানো হয়, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. ইয়াকুব আলী পাটওয়ারীকে আহ্বায়ক এবং মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মো. ফাহিমুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির সদস্যরা হলেন- স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসীর, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সদস্য (পরিকল্পনা) আবু সাঈদ চৌধুরী, গণপূর্ত অধিদফতরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. মইনুল ইসলাম এবং রাজউকের নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম।

শুক্রবার (২৯ মার্চ) সকাল ১১টায় গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বনানীর অগ্নিদুর্ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শনে যাবেন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এছাড়া এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের উপ-পরিচালক দিলিপ কুমার ঘোষ জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বনানীর এফআর টাওয়ারের কীভাবে আগুনের সূত্রপাত এবং কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসেনের নির্দেশে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরএমএম/বিএ

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :