বিল্ডিং কোড মানা হচ্ছে কি-না, নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:১০ পিএম, ২৯ মার্চ ২০১৯

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে অগ্নি দুর্ঘটনার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বহুতল ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে বিল্ডিং কোড যথাযথভাবে অনুসরণ করতে হবে। বিল্ডিং কোড মানা হচ্ছে কি-না সেজন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে নজরদারি বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, অগ্নি দুর্ঘটনাসহ সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে ভবন মালিক ও ব্যবহারকারীদের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং এ ক্ষেত্রে সরকারি সংস্থাসমূহের কঠোর নজরদারি বাড়ানোসহ জনসচেতনতা সৃষ্টির উপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে।

শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এক সভায় তিনি একথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন শেখ হাসিনা।

সভার শুরুতেই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বনানী অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের স্মরণে গভীর শোক প্রকাশ ও তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। একইসঙ্গে সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে পবিত্র জুমার দিনে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করা হয় এবং এ ঘটনায় হতাহতের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করা হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডার্ন-এর প্রতিও গভীর সহমর্মিতা জানান।

গতকালের বনানী দুর্ঘটনার পরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর, সশস্ত্র বাহিনী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাশ্রমী শিক্ষার্থীদের সাহসী ও কার্যকরী ভূমিকার জন্য সকলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুকন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনা সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সভায় উপস্থিত ছিলেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফরউল্লাহ, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, শ্রী পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য, নুরুল ইসলাম নাহিদ, ড. আব্দুর রাজ্জাক, কর্নেল (অব) ফারুক খান, শ্রী রমেশ চন্দ্র সেন, অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান খান, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ ও উপ-দফতর ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

এছাড়া সভায় সিদ্ধান্ত হয়, আওয়ামী লীগ যথাযথ মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন ও সংগঠনের জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতিকে সামনে রেখে দেশব্যাপী সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার লক্ষ্যে আটটি টিম গঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। দলের উপদেষ্টামণ্ডলী, প্রেসিডিয়াম এবং কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত এই টিমসমূহ আটটি (০৮) সাংগঠনিক বিভাগের কর্মকাণ্ড পর্যবেক্ষণ ও গতিশীল করবে।

এফএইচএস/জেএইচ/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :