মালিকের লোভের আগুনে মরেছে নিরীহ মানুষ : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৩ পিএম, ২৯ মার্চ ২০১৯

দেশের ভবন মালিকদের সতর্ক বার্তা দিয়ে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ভবনটি (বনানীর এফ আর টাওয়ার) ‘নির্মাণবিধি (বিল্ডিং কোড)’ অনুসরণ করে নির্মিত নয়। অনুমোদনবিহীন নির্মিত এ ভবনে বিধিমোতাবেক অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থাও ছিল না। অর্থাৎ মালিকের লোভের আগুনে পুড়ে হতাহত (নিহত-আহত) হয়েছে নিরীহ মানুষ। এর পুনারাবৃত্তি যেন না হয়, সে বিষয়ে অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, মানুষের লোভের আগুনে পুড়ে আর যেন নিরীহ প্রাণের মৃত্যু না ঘটে।

শুক্রবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে ওয়ার্ল্ড কমিউনিকেটরস কাউন্সিলের (ডব্লিউসিসি) বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের উদ্বোধনী সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নে যোগাযোগকর্মীসহ সবার ভূমিকা রয়েছে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টাই দেশকে সমৃদ্ধতর করে। বিশ্বব্যাপী উন্নয়ন খাতে বেসরকারি সংস্থাগুলোর ভূমিকা আগে থেকে এখন অনেক সক্রিয়। কূটনৈতিক তৎপরতাও এখন অর্থনীতিমুখী এবং নিজের সমৃদ্ধির পাশাপাশি প্রতিবেশী দেশগুলোর সমৃদ্ধিও জরুরি। ওয়ার্ল্ড কমিউনিকেটরস কাউন্সিল একইসঙ্গে বিশ্ব এবং আঞ্চলিক সহযোগিতার ক্ষেত্র প্রসারিত করবে।

ওয়ার্ল্ড কমিউনিকেটরস কাউন্সিল-বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের নির্বাহী কমিটির সভাপতি এএসএম আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. গোলাম রহমান, পাবলিক রিলেশনস কাউন্সিল অব ইন্ডিয়ার (পিআরসিআই) চিফ মেন্টর ও চেয়ারম্যান এমেরিটাস এমবি জয়রাম, পিআরসিআই’র অপর প্রতিনিধির মধ্যে গভর্নিং কাউন্সিল চেয়ারম্যান বিএন কুমার, ন্যাশনাল ভাইস-প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক বিকে সাহু, কলকাতা চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ দাস প্রমুখ।

গতকাল রাজধানীর বনানীর এফআর টাওয়ারে লাগা আগুনে এখন পর্যন্ত ২৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চত করেছে পুলিশ। এতে আহত হন ৭৩ জন।

এইউএ/জেডএ/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :