বন্যার্তদের দেখতে গিয়ে নৌকা ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম
প্রকাশিত: ০৭:৫৫ পিএম, ১৬ জুলাই ২০১৯

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় বন্যার পানিতে নৌকা ডুবে ৪ শিশুসহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুত্বর আহত অবস্থায় ৩ জনকে উদ্ধার করে উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে হাতিয়া ইউনিয়নের নতুন অনন্তপুর গ্রামে এ হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় শোকের মাতম চলছে।

Kurigram-1

নৌকায় থাকা প্রত্যক্ষদর্শী রোকেয়া বেগম, রুবেল, লাভলী বেগম, এনামুল ফকির জানান, আমরা ২০/২৫ জন নারী-পুরুষ ও শিশুসহ নৌকা নিয়ে বন্যার পানিতে ডুবে যাওয়া স্বজনদের বাড়ি দেখতে যাওয়ার জন্য রওনা দেই। নৌকাটি ওই বাড়ির কাছাকাছি গেলে বন্যার পানির তীব্র স্রোতে নৌকাটি তলিয়ে যায়। ডুবন্ত নৌকায় থাকা শিশু ও নারীসহ লোকজন বাঁচার জন্য আত্মচিৎকার করেন। এ সময় অপর একটি নৌকা ঘটনাস্থলে এসে তাদের উদ্ধারের সহায়তা করে।

এ সময় ডুবন্ত নৌকায় থাকা অনেকে সাঁতরিয়ে পার্শ্ববর্তী স্থানে উঠে আসে। পানিতে তলিয়ে যাওয়া রূপামণি (৮), হাসিবুর (৯) ও রুনা বেগমকে (৩২) উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ওই গ্রামের মনসুর আলীর ছেলে সুমন (৮), রাশেদের মেয়ে রুকুমনি (৭) পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। পরে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে।

Kurigram-1

পরে বিকেল ৬টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নিখোঁজ সুমন ও রুকু মনিকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেন। অপরদিকে নৌকাডুবির ঘটনায় উদ্ধার করা গুরুতর অসুস্থ লাভলী বেগম (৪৫), রুমি বেগম (১৬), আয়শা সিদ্দিকাকে (৫) উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফখরুল আলম জানান, আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের অবস্থা এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো।

কুড়িগ্রাম ফায়ার সাভির্সের উপ-সহকারী পরিচালক মঞ্জিল হক জানান, দীর্ঘ ৪ ঘণ্টা চেষ্টার পর নিখোঁজ ২ শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নাজমুল/এমএএস/পিআর

টাইমলাইন