বন্যা মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করছে ২২ মন্ত্রণালয়

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম
প্রকাশিত: ০৬:২২ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৯

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেন, কোনো দুর্ভোগ থাকবে না, কোনো আতঙ্ক থাকবে না। ভয়ের কোনো কারণ নেই, এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করার সক্ষমতা সরকারের আছে। বন্যা মোকাবিলায় ২২টি মন্ত্রণালয় একসঙ্গে কাজ করছে। আমরা অতীতের অভিজ্ঞতা থেকে কাজ করছি। সবার আগেই ত্রাণ সামগ্রী পাঠিয়েছি আমরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির বিশেষ সভা ও কুড়িগ্রামে বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, কুড়িগ্রামের দুর্ভোগ লাঘবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাপান সরকারের সঙ্গে বন্যা সহনীয় কুড়িগ্রাম জেলা গড়ার লক্ষ্যে এ জেলার সব নদীর দুই তীরে বাঁধ নির্মাণ ও খননের মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। ১৬টি নদী জেলাবাসীর জন্য আর দুঃখ নয়, আশীর্বাদ হিসেবে কাজ করবে।

এ সময় কুড়িগ্রাম-৪ আসনের সংসদ সদস্য এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. পনির উদ্দিন আহমেদ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির বিশেষ সভায় অগ্রগতি পর্যালোচনা করে ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে ৫০০ টন জিআর চাল, ১০ লাখ টাকা, ৪০০ বান্ডিল ঢেউটিন, গৃহনির্মাণ বাবদ ১ কোটি ২০ লাখ টাকা, ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার, ১ হাজার দুর্যোগ সহনীয় ঘর তৈরি এবং তিন মাসের জন্য ভিজিএফ চলমান রাখার নির্দেশ দেন।

এরপর প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান উলিপুরে এম এ মতিন কারিগরি কলেজ, চিলমারীতে ফুড গোডাউন এবং রৌমারী ও চর রাজীবপুর উপজেলায় ত্রাণ বিতরণ করার পাশাপাশি বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। সেখান থেকে তিনি স্পিডবোটে জামালপুরের উদ্দ্যেশে রওনা দেন।

নাজমুল হোসাইন/আরএআর/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :