কাশ্মীরের হামলাকারীরা ‘স্বাধীনতা সংগ্রামী’ : পাক গণমাধ্যম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় প্রাণঘাতী হামলা চালানো কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী জয়েশ-ই-মোহাম্মদের সদস্যদের ‘স্বাধীনতা সংগ্রামী’ আখ্যা দিয়েছে পাকিস্তানের গণমাধ্যম। শুক্রবার দেশটির একটি জাতীয় দৈনিকে কাশ্মীরে হামলাকারীদের ওই খেতাব দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

দেশটির প্রথম সারির ইংরেজি দৈনিক দ্য ন্যাশন জম্মু-কাশ্মীরে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের হামলার ঘটনায় ‘স্বাধীনতা সংগ্রামীরা হামলা শুরু করেছে, ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে দখলদার বাহিনীর ৪৪ সদস্য নিহত’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

এতে বলা হয়, অধিকৃত কাশ্মীরে ক্রমবর্ধমান ভারতীয় নৃশংসতার কাছে নতজানু হতে অস্বীকার করে বৃহস্পতিবার দখলদার বাহিনীর ওপর কঠোর হামলা চালিয়েছে স্বাধীনতা সংগ্রামীরা। তারা ভারতীয় সেনাবাহিনীর গাড়িবহরে গাড়িবোমা হামলা চালিয়ে ৪৪ সেনাসদস্যকে হত্যা করেছে। পুলওয়ামা জেলার শ্রীনগর-জম্মু মহাসড়কের অবন্তিপুরায় ওই হামলায় আহত হয়েছে আরো কয়েক ডজন ভারতীয় সেনা।

আরও পড়ুন : ‘কাশ্মীরে সেনাদের খুন করিয়েছেন মোদিই’ 

ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনীর ওপর এই হামলা চালিয়ে জয়েশ-ই-মোহাম্মদ কোনো ভুল করেনি বলে সংগঠনটির এক মুখপাত্রের মন্তব্যও প্রকাশ করেছে দ্য ন্যাশন। দেশটির প্রথম সারির দৈনিক দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন ও ডেইলি টাইমসও জম্মু-কাশ্মীরের হামলার ঘটনা নিয়ে করা প্রতিবেদনে হামলাকারীদের স্বাধীনতাকামী বলে মন্তব্য করেছে।

দ্য ন্যাশন বলছে, অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরে প্রায় ৫ লাখ সেনা মোতায়েন রেখেছে ভারত। প্রতিনিয়ত স্বাধীনতাকামী বিক্ষোভকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস ও পেলেট গান ছুঁড়ছে। গত তিন দশক ধরে ভারতীয় শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনরত প্রায় সাত লাখ কাশ্মিরি নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার অবন্তীপুরার সড়কপথ ব্যবহার করে আড়াই হাজারের বেশি সিআরপিএফ জওয়ান যাচ্ছিলেন। ৭৮টি সাঁজোয়াযুক্ত বাসে করে জম্মু কাশ্মীর জাতীয় সড়কের ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় হামলা হয়।

আরও পড়ুন : ফের কাশ্মীরে বিস্ফোরণ, সেনাবাহিনীর মেজর নিহত 

পুলওয়ামায় হামলার ঠিক দু'দিন আগে, জয়েশ-ই-মোহাম্মদের সদস্যরা আফগানিস্তানে গাড়ি বিস্ফোরণের একটি ভিডিও প্রকাশ করে। জম্মু কাশ্মীরের ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি ভিডিওটি শেয়ার করে এবং সম্ভাব্য হামলা সম্পর্কে তথ্য দেয়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের আত্মঘাতী বোমারু আদিল আহমেদ দার হামলার চালানোর জন্য একটি গাড়িতে অপেক্ষা করছিলেন। ২২ বছর বয়সী এই হামলাকারীর গাড়িতে ছিল ৬০ কেজি শক্তিশালী আরডিএক্স বিস্ফোরক। বিস্ফোরণ এতটা শক্তিশালী ছিল যে কয়েকশ মিটার দূরে ছিটকে পড়ে কয়েকটি বাসের খণ্ডাংশ।

সিআরপিএফ জওয়ানদের দুটি বাসকে টার্গেট করে বাম দিক থেকে কনভয়ের বাসে হামলা চালায় বোমারু আদিল। এই দুই বাসের একটির সামনে বিস্ফোরণ ঘটায় এবং বিস্ফোরণের বিকট শব্দ শোনা যায় কয়েক কিলোমিটার দূরে থেকেও। একটি বাস বিস্ফোরণে টুকরো টুকরো হয়ে যায় এবং আরেকটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

আরও পড়ুন : মোদির স্বপ্ন কখনই পূরণ হবে না, হুঙ্কার পাকিস্তানের 

শনিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেছেন, তদন্ত ছাড়াই দোষারোপের সংস্কৃতি অত্যন্ত দুঃখজনক। এই অঞ্চলের শান্তি এবং স্থিতিশীলতাকে গুরুত্ব দেয়া উচিত ভারতের। এছাড়া পাকিস্তানকে নরেন্দ্র মোদির কূটনৈতিকভাবে বিচ্ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়েছেন। তার এই ঘোষণার পর মেহমুদ বলেন, মোদির স্বপ্ন কখনই পূরণ হবে না।

এসআইএস/এমকেএইচ

টাইমলাইন