ফণী মোকাবিলায় বিমান বাহিনীও প্রস্তুত

কূটনৈতিক প্রতিবেদক কূটনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:০১ এএম, ০৪ মে ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় ফণী পরবর্তী উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতার জন্য বিমান ও হেলিকপ্টার প্রস্তুত রেখেছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। এছাড়া বিমান বাহিনী ঘাঁটি বাশারে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

শনিবার (৩ মে) বিকেলে এ বিষয়ে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয় বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর)।

এতে বলা হয়, বিমান বাহিনী ঘাঁটি বঙ্গবন্ধু, কুর্মিটোলায় পরিবহন বিমান সি-১৩০ এবং এএন-৩২ ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতা পরিচালনার জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী বিতরণের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৩টি এএন-৩২ বিমান।

আরও পড়ুন> ফণী পরবর্তী উদ্ধার-সহায়তায় প্রস্তুত নৌবাহিনীর ৩২ জাহাজ


বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ, ত্রাণ বিতরণ ও মেডিক্যাল ইভাকুয়েশনের জন্য ২টি এমআই-১৭ এবং ২টি এডব্লিউ-১৩৯ হেলিকপ্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মেডিক্যাল ইভাকুয়েশনের জন্য রাখা হয়েছে ৩টি এল-৪১০ বিমান। এছাড়া ৩টি টিম দুর্যোগপূর্ণ এলাকায় উদ্ধার অভিযান পরিচালনার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। প্রয়োজনীয় মূহূর্তে ব্যবহারের জন্য অন্যান্য হেলিকপ্টারও প্রস্তুত রয়েছে।

৩টি এএন-৩২ বিমানের মাধ্যমে প্যারাসুটের সাহায্যে দুর্যোগপূর্ণ এলাকায় বিতরণের জন্য ১৫০০ প্যাকেট ত্রাণ প্রস্তত রাখা হয়েছে। এদিকে বিমান বাহিনী ঘাঁটি মতিউর রহমান বরিশাল বিমান বন্দরে প্রয়োজনীয় জনবল ও বিমান মোতায়েনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

এদিকে ফণী পরবর্তী জরুরি উদ্ধার, ত্রাণ ও চিকিৎসা সহায়তাসহ যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম, খুলনা ও মোংলা নৌ অঞ্চলে নৌবাহিনীর ৩২টি জাহাজ সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় জরুরি ত্রাণ সামগ্রী এবং চিকিৎসা সহায়তা প্রদানে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

জেপি/এমএসএইচ/এসআর

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :