অমাবস্যা হওয়ায় ফণীর আঘাত প্রবল হতে পারে 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৫ এএম, ০৪ মে ২০১৯

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী পশ্চিমবঙ্গের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। কলকাতা থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে এখন ফণীর অবস্থান। ওড়িশায় আঘাত হানার পর পশ্চিমবঙ্গের খুব কাছাকাছি চলে আসা ফণী মাঝ রাতেই আঘাত হানবে গোটা রাজ্যে। তবে শুক্রবার অমাবস্যা হওয়ায় ঘূর্ণিঝড় ফণী বিধ্বংসী রুপ ধারণ করতে পারে।

পশ্চিমবঙ্গের আঘাত হানার পর এটি বাংলাদেশে অভিমূখে ছুটবে। ইতোমধ্যেই কলকাতায় শুরু হয়ে গিয়েছে ব্যাপক বৃষ্টি। দিঘা ও মন্দারমণিতে উত্তাল হয়ে ওঠা সমুদ্রের ঢেউ ১০ থেকে ১৫ ফুট উঁচু হয়ে আছড়ে পড়ছে উপকূলে। সমুদ্র তীরের বাঁধ উপচে পানি ঢুকে পড়েছে লোকালয়ে।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ফণীর আঘাতে ভারতে ৮ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন শতাধিক মানুষ। তবে সর্বশেষ পাওয়া তথ্য মতে, প্রবল শক্তিশালী এই ঘূর্ণিঝড়টির শক্তি কিছুটা কমেছে। কলকাতায় যখন ফণী প্রবেশ করবে, তখন ঝড়ের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ৭০ থেকে ৮০ কিলোমিটার।

আরও পড়ুন>> মাঝরাতে ফণীর কবলে কলকাতা, পরে বাংলাদেশ

ভারতের আবহাওয়া দফতরের দেয়া তথ্যমতে, শুক্রবার সকালেই ওডিশাতে আঘাত হানে ফণী৷ সেখানে ফণী তার ধ্বংসলীলা আর তাণ্ডব দেখিয়েছে। অল্প কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ফণী আঘাত হাসবে পশ্চিমবঙ্গে।

শুক্রবার অমাবস্যা শুরু প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী আরও বিধ্বংসী রুপ ধারন করতে পারে৷ অমাবস্যা মানে ভরা কোটাল৷ যে সময় জলোচ্ছ্বাসের প্রবণতা থাকে৷ তার সঙ্গে যদি যুক্ত হয় ১০০ কিলোমিটারের বেশি গতিবেগ তাহলে ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা অনেক বেশি হতে পারে৷

ফণী কলকাতাসহ উপকূলবর্তী বেশ কিছু অঞ্চলে তাণ্ডব চালাবে। তবে সবরকম প্রস্তুতি নিয়েছে সেনাবাহিনী। শিলংয়ে সেনাবাহিনীর ইস্টার্ন কমান্ডের হেডকোয়ার্টার ও কলকাতার হেডকোয়ার্টার যৌথভাবে উদ্ধারকাজ পরিচালনা করবে।উদ্ধার ও ত্রাণ বিতরণ করা হবে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে।

এসএ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]