যেকোনো সময় কাবুলে হামলা চালাতে পারে তালেবান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১৩ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২১
ছবি : সংগৃহীত

আফগানিস্তানের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বৃহত্তম শহরও এখন তালেবানের দখলে। দেশটির স্থানীয় কর্মকর্তারা শুক্রবার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আগ্রাসী ভূমিকায় সরকার বাহিনীর প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙে দিয়েছে তালেবান। দেশটির অধিকাংশ এলাকাই এখন তালেবানের নিয়ন্ত্রণে। ফলে যেকোনো সময় কাবুলে হামলা চালিয়ে তালেবান দেশটির রাজধানী দখল করে নিতে পারে বলে আশঙ্কা বাড়তে শুরু করেছে।

এক সরকারি কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন যে, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত ইকোনমিক হাব হিসেবে পরিচিত কান্দাহার শহরের দখল নিয়েছে তালেবান। প্রায় ২০ বছরের যুদ্ধ শেষ করে ওই অঞ্চল থেকে মার্কিন নেতৃত্ত্বাধীন আন্তর্জাতিক বাহিনীর সদস্যদের সরিয়ে নেয়া হচ্ছে।

তালেবানের হাতে হেরাত শহরেরও পতন ঘটেছে। প্রাদেশিক কাউন্সিলের সদস্য গুলোম হাবিব হাশিমি বলেন, হেরাত যেন ভৌতিক শহরে পরিণত হয়েছে। ইরান সীমান্তের কাছে অবস্থিত ওই শহরে প্রায় ৬ লাখ মানুষের বসবাস ছিল।

তিনি জানিয়েছেন, সেখানকার বাসিন্দারা হয় বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে অথবা নিজেদের বাড়ি-ঘরে লুকিয়ে আছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা আশঙ্কা প্রকাশ করে জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের টুইট টাওয়ারে হামলার পর ২০০১ সালে পতন হওয়া তালেবান যেকোনো সময় রাজধানী কাবুলে হামলা চালাতে পারে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন শুক্রবার এক ঘোষণায় জানিয়েছে, মার্কিন দূতাবাস কর্মীদের কাবুল থেকে সরিয়ে নিতে অতিরিক্ত তিন হাজার সেনা মোতায়েন করা হবে। অপরদিকে ব্রিটেন নিশ্চিত করেছে যে, নিজেদের নাগরিকদের আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেয়ার কাজে সহায়তা করতে সামরিক অভিযান শুরু করবে তারা।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, আপনারা যদি লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন তালেবান কাবুলকে অন্য সব শহর থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার চেষ্টা করছে। হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, মার্কিন নাগরিকদের আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেয়ার বিষয়ে জাতীয় নিরাপত্তা টিমের নিয়মিত ব্রিফিং পাচ্ছেন বাইডেন।

কাবুল থেকে এখন মাত্র ৫০ কিলোমিটার (৩০ মাইল) দূরে অবস্থান করছে তালেবান। ওই শহরে ভয়াবহ হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশগুলো তাদের নাগরিকদের সরিয়ে নিতে হিমশিম খাচ্ছে।

শুক্রবার দূতাবাস থেকে নিজেদের নাগরিকদের সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন, জার্মানি, ডেনমার্ক এবং স্পেন। এদিকে আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস।

টিটিএন/এমএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]