ভারতে নির্বাচনী প্রচারণায় বিরিয়ানির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সংঘর্ষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:২৫ পিএম, ০৭ এপ্রিল ২০১৯

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগরে নির্বাচনী প্রচারণার সময় দেশটির বিরোধীদল কংগ্রেসের নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা বিরিয়ানি বণ্টনের সময় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছেন। মুজাফফরনগরের কংগ্রেস দলীয় প্রার্থী নাসিমুদ্দিন সিদ্দিকীর সমর্থকদের এই সংঘর্ষে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

প্রদেশের সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, শনিবার নির্বাচন কমিশনের অনুমতি ছাড়াই নির্বাচনী এক বৈঠকে বিরিয়ানি বণ্টন করেছে কংগ্রেস। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সংঘর্ষে জড়িত সন্দেহে ৯ সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে বলছে, সাবেক বিধায়ক মাওলানা জামিলের বাসভবনে কংগ্রেসের নির্বাচনী বৈঠক আয়োজন করা হয়েছিল। উত্তরপ্রদেশের কাকরোলি থানার তাদহেদা গ্রামের এই নেতা সম্প্রতি কংগ্রেসে যোগদান করেন।

আরও পড়ুন : ধর্ষিতাকে বিচারকের প্রশ্ন : পা জোড়া করেছিলেন?

কর্মকর্তারা বলছেন, বৈঠকের পর দুপুরের খাবারের জন্য বিরিয়ানি পরিবেশন করার কথা ছিল। কিন্তু বৈঠকের আগেই বিরিয়ানি বণ্টন শুরু হলে উপস্থিত নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মাঝে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে সহিংস হয়ে উঠা কংগ্রেস সমর্থকদের এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির আওতায় কংগ্রেস নেতা জামিল, তার ছেলে নাইম আহমদ-সহ অন্যান্য ৩৪ জনের নামে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

পুলিশের সার্কেল অফিসার রাম মোহন শর্মা বলেন, এখন পর্যন্ত ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি বলেন, যেকোনো ধরনের সহিংস পরিস্থিতি মোকাবেলায় ওই গ্রামে নিরাপত্তা জোরদার ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : উন্নয়নের স্পিড ব্রেকার দিদি : মোদি

মুজাফফরনগরের নেতা মাওলানা জামিল গত সপ্তাহে বহুজন সমাজ পার্টি (বিএসপি) থেকে দেশটির প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসে যোগ দেন। ২০১২ সালে প্রদেশের মীরাপুর আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে প্রথম দফায় ১১ এপ্রিল ভোটগ্রহণ শুরু হবে। শেষ হবে আগামী ১৯ মে। সাত দফায় অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে ২৩ মে। মুজাফফরনগরে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে প্রথম দফায়।

সূত্র : এনডিটিভি।

এসআইএস/এমএস

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :