দুটি ভোটার পরিচয়পত্র থাকায় গম্ভীরের বিরুদ্ধে মামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:১৪ পিএম, ২৬ এপ্রিল ২০১৯

রাজনীতির মাঠে ব্যাটিং করতে নেমেই বাউন্সারের মুখোমুখি ভারতের সাবেক ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। দুটি ভোটার আইডি কার্ড থাকার অভিযোগে গম্ভীরের বিরুদ্ধে মামলা করলেন লোকসভা নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী আম আদমি পার্টির নেত্রী অতিশী।

ভারতীয় গণমাধ্যমে গম্ভীরের বিরুদ্ধে মামলার খবর জানিয়ে বলা হয়েছে, আগামী ১ মে এই মামলার শুনানি হবে। অবশ্য আম আদমি পার্টির নেত্রীর অভিযোগ পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন গম্ভীর।

তারকা প্রার্থী অতিশীর দাবি, দিল্লির করোলবাগ ও রাজেন্দ্র নগর উভয় এলাকাতেই ভোটার হিসাবে গম্ভীরের নাম নথিভুক্ত রয়েছে। আর এমন অভিযোগ করে শুক্রবার গম্ভীরের বিরুদ্ধে একাধিক টুইট করেন তিনি।

অতিশী তার টু্ইট বার্তায় বলেন, ‘দিল্লির করোলবাগ ও রাজেন্দ্র নগরের দুটি ভিন্ন (বিধানসভা) কেন্দ্রে পৃথক ভোটার কার্ড থাকায় পূর্ব দিল্লির বিজেপি প্রার্থী গৌতম গম্ভীরের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছি।’

অতশীর দল বলছে, অবিলম্বে গৌতম গম্ভীরের প্রার্থিতা বাতিল করা হোক। টুইটারে গম্ভীর অপরাধ করেছেন মর্মে হ্যাশট্যাগ দিয়ে তিনি লিখেছেন, মনোনয়নপত্রে ভুয়া তথ্য দিলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তার জন্য এক বছরের কারাদণ্ডও হতে পারে।

অতিশীর টুইটের পর থেকে গম্ভীরকে আক্রমণ করে ধেয়ে আসছে একের পর এক বাউন্সার। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘ভোটারদের এমন কারও ওপর ভোট অপচয় করা উচিত নয় যিনি শিগগিরই বাতিল হয়ে যাবেন।’

কেজরিওয়ালের পর টুইটারে আক্রমণ গম্ভীরকে বিরোধীতা করে দলটির নেতা সঞ্জয় সিংহ প্রশ্ন তোলেন, ‘নির্বাচন কমিশন কী এখনও চুপ করে বসে থাকবে? দুটি ভোটার কার্ড থাকা এক ব্যক্তি কীভাবে ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন?’

ভারতের জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর গতমাসে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। চলতি সপ্তাহেই পূর্ব দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হিসাবে তার নাম ঘোষণা করে বিজেপি। এই কেন্দ্রে অতিশী ছাড়াও তার প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের অরবিন্দ সিংহ লাভলি।

মনোনয়নপত্রে পেশ করা তথ্যে অসঙ্গতি থাকার জন্য এর আগেও গম্ভীরের প্রার্থিপদ বাতিলের দাবি তুলেছিল কংগ্রেস এবং আম আদমি পার্টি। তবে গম্ভীরের দাখিল করা তথ্যে তেমন কোনও অসঙ্গতি না থাকায় সেই দাবি খারিজ করে দেয় কমিশন।

এসএ/এসআর

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :