‘হেরে গেছেন মোদি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৫৪ পিএম, ১৬ মে ২০১৯

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইতোমধ্যে হেরে গেছেন। পুরো ভারতবর্ষ হারিয়ে দিয়েছে। ‘হেরো বাবু’ হেরে গেছে। বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের মথুরাপুরে তৃণমূলের এক সমাবেশে ভাষণ দেয়ার সময় তিনি এসব মন্তব্য করেন।

কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকার ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তীব্র সমালোচনা করেন মমতা। বিজেপি টাকা দিয়ে ভোট কেনার চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

মমতা বলেন, ‘মনে রাখবেন নরেন্দ্র মোদিকে যদি এই বাংলার লোক একটি ভোটও দেয় তাহলে এরচেয়ে বড় অবিশ্বাস্য কাজ আর কিছু হবে না! গতকালও (মোদি) মিথ্যা কথা বলে গেছে, (পশ্চিমবঙ্গে) আমি তিনশ’ আসন পাবো! আসলে তারা একশ’ পাবে কিনা সন্দেহ আছে।’

আরও পড়ুন : স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিককে গাছে বেঁধে বেধড়ক মারপিট (ভিডিও)

তৃণমূলের এই নেত্রী বলেন, ‘বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে দেয়া হয়েছে। বিদ্যাসাগর কলেজ থেকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় অমিত শাহের নেতৃত্বে বিজেপি যে গুণ্ডামি করেছে আগামীদিনে এর বদলা নিতে হবে। আমাদের মনীষীদের গায়ে হাত দেয়ায় কেউ ছেড়ে কথা বলবে না। লজ্জাও করে না, ওই ‘মিথ্যাবাদী প্রধানমন্ত্রী’র!

তিনি বলেন, উত্তর প্রদেশের সভায় বলেছে, আমি বিদ্যাসাগরের মূর্তি বানিয়ে দেবো। বাংলার টাকা আছে বিদ্যাসাগরের মূর্তি বানানোর। দুইশ’ বছর আগেকার ঐতিহ্য ফিরিয়ে দিতে পারবে? জীবন গেলে জীবন ফিরিয়ে দিতে পারবে? দুইশ’ বছরের ঐতিহ্য তুমি ভেঙে দিলে, এর সব ভিডিও প্রমাণ রয়েছে। আর তুমি বলছ তৃণমূল কংগ্রেস ওই কাজ করেছে!

আরও পড়ুন : রোজার দিনে হোটেলে খাওয়ার অভিযোগে আটক ৮০

মমতা বলেন, ‘লজ্জা করে না! কান ধরে উঠবস করা উচিত এই প্রধানমন্ত্রীর একবার নয়, লক্ষবার মিথ্যা কথা বলার জন্য। মিথ্যাবাদী। প্রমাণ করো, তা নাহলে তোমাকে কিন্তু আমরা জেলে টানব। আমরা ছেড়ে কথা বলার লোক নই। আমাদের কাছে প্রমাণ আছে। আইন তার নিজস্ব পথে চলবে।’

তিনি প্রধানমন্ত্রী মোদিকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, ‘তোমার নেতা অমিত শাহ কী বলে গেছে বাংলায়? বাঙাল, ‘কাঙাল’? বাঙালকে ‘কাঙাল’ বলে গেছে তোমার দল। সেজন্য বাংলার একটা মানুষও বিজেপি করবেন না। বিজেপির সঙ্গে যাবেন না। যারা তাদের সাথে যাবেন তারা জেনে রাখুন আগামীদিনে সমাজ তাদের গ্রহণ করবে না। ভালোবাসবে না।’

আরএসএসের মত এত বিপজ্জনক, এত মৌল উগ্রবাদী আর কেউ নেই। এরা মৌলবাদী, উগ্রবাদী। এরা বিদ্বেষ ছড়ায়, সমাজে দাঙ্গা বাধায় বলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন। পার্সট্যুডে।

এসআইএস/পিআর

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]