একজন হিন্দু কখনো জঙ্গি হতে পারে না : অমিত শাহ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:১২ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৯

ভারতের ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেত্রী সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের সমর্থনে এবার মুখ খুললেন দলটির সভাপতি অমিত শাহ। সাধ্বীর সুরে অমিত শাহ বললেন, একজন হিন্দু কখনো জঙ্গি হতে পারে না।

মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত সাধ্বী প্রজ্ঞা জামিনে মুক্ত। তার বিরুদ্ধে ইউএপিএ আইনে মামলা চলছে। তাকেই এবার মধ্যপ্রদেশের ভোপাল লোকসভা আসন থেকে প্রার্থী করেছে বিজেপি।

কিন্তু তার প্রার্থীপদ নিয়ে হইচই শুরু করেছে বিরোধীরা। তাদের অভিযোগ, একজন জঙ্গিকে কীভাবে প্রার্থী করল বিজেপি। মঙ্গলবার বিরোধীদের এই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই মুখ খোলেন অমিত শাহ।

তিনি বলেন, একজন হিন্দু কখনো জঙ্গি হতে পারে না। কারণ হিন্দুধর্ম কাউকে আঘাত করার কথা শেখায় না। অমিত শাহর অভিযোগ, কংগ্রেস প্রজ্ঞাকে জঙ্গি বলে অভিযুক্ত করছে। তাই তাকে (প্রজ্ঞা) প্রার্থী করে বিজেপি কংগ্রেসের বিরুদ্ধে সত্যাগ্রহের রাস্তা নিয়েছে বলেই দাবি অমিতের।

একই সঙ্গে তিনি ভোপালে কংগ্রেসের প্রার্থী দ্বিগ্বিজয় সিংয়ের সমালোচনা করেন। তার বক্তব্য, মধ্যপ্রদেশের মানুষই ডিগ্গি রাজাকে (দ্বিগ্বিজয়) জবাব দেবেন। কারণ, দ্বিগ্বিজয়ই সবসময় হিন্দু সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ তুলে সরব হন। সেটারই জবাব তার বিরুদ্ধে ইভিএমে পড়বে।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণ হয়। সেই বিস্ফোরণেই অভিযুক্ত সাধ্বী প্রজ্ঞা। তিনি এখন জামিনে মুক্ত। তবে তার বিরুদ্ধে মকোকা আইন প্রত্যাহার করে নিয়েছে এনআইএ। ভোটের আগে তিনি বিজেপিতে যোগ দেন। তারপরই ভোপাল থেকে তার নাম ঘোষণা করা হয়।

বিরোধীদের প্রশ্ন, সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত একজনকে বিজেপি কীভাবে প্রার্থী করে? যদিও সন্ত্রাসের অভিযোগ মানতে নারাজ প্রজ্ঞা। তাকে জোর করে এই মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে বলে তার দাবি।

প্রার্থী হওয়ার পর সাধ্বীও বিতর্ক বাড়িয়েছেন। প্রথমে জেলে থাকা অবস্থায় তার ওপর পুলিশি নিপীড়নের অভিযোগ তুলে তিনি সরব হন। কর্মীদের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরদিন ওই একই সঙ্গে বলতে গিয়ে মহারাষ্ট্র অ্যান্টি টেররিস্ট স্কোয়াডের প্রধান হেমন্ত কারকারেকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন।

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে জাতীয় রাজনীতির ক্ষেত্রে অন্যতম বড় উপকরণ হয়ে দাঁড়িয়েছে গরু। ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সৌজন্যে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনেও ফের আলোচনায় এসেছে ‘গোমাতা’।

সেই আলোচনায় এবার ঘি ঢেলে দেন ভোপাল কেন্দ্রের বিজেপির নারীপ্রার্থী সাধ্বী। সোমবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেন, গো-মূত্র থেকে তার ক্যানসার রোগ সেরে গেছে। জিনিউজ।

এসআইএস/পিআর

টাইমলাইন