মমতাকে লাথি মেরে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়ার হুমকি বিজেপির

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ১১ মে ২০১৯

দু'দিন আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে গণতন্ত্রের থাপ্পড় দিতে চেয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী প্রধান মমতা বন্দোপাধ্যায়। তার এই থাপ্পড়ের বদলায় এবার লাথি মেরে মমতাকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়ার হুমকি দিলেন রাজ্যের বসিরহাটের বিজেপি প্রার্থী সায়ন্তন বসু।

শনিবার বশিরহাটের হাড়োয়ায় এক জনসভায় ভারতীয় জনতা পার্টির এই প্রার্থী বলেন, দিদি পশ্চিমবঙ্গের মানুষ আপনাকে লাথি মারার জন্য তৈরি আছে।

মঙ্গলবার পুরুলিয়ায় এক জনসভা থেকে নরেন্দ্র মোদিকে নিশানা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, নরেন্দ্র মোদি যখন পশ্চিমবঙ্গে এসে বলেন, এখানে চাঁদাবাজির সরকার চলছে; তখন মনে হয় তাকে একটি কষিয়ে গণতন্ত্রের থাপ্পড় মারি।

আরও পড়ুন : মমতা দিদির থাপ্পড় আমার জন্য আশীর্বাদ : মোদি

বিজেপি নেতা সায়ন্তন শনিবার বসু মমতাকে লাথি মেরে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া করার হুমকি দিয়ে বলেন, মমতা বন্দোপাধ্যায় বলছেন, প্রধানমন্ত্রীকে থাপ্পড় মারবেন। দিদি, আপনি থাপ্পড় মারুন, তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। কিন্তু রাজ্যের মানুষ আপনাকেও লাথি মারার জন্য প্রস্তুত হয়ে আছে। সেই লাথি খেয়ে আপনি ত্রিপুরা পেরিয়ে বাংলাদেশে গিয়ে পড়বেন। সেই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

তিনি বলেন, লোকসভা নির্বাচনে ভোট যতো এগোচ্ছে দিদির মাথা ততোই গরম হচ্ছে। আর বাকংসযম হারিয়ে প্রধানমন্ত্রীকেও চড় কষানোর কথা বলছেন।

তার কথায়, প্রথম তিন দফায় তৃণমূল খাতা খুলতে পারেনি। পশ্চিমবঙ্গ থেকে তৃণমূলের বিদায় আসন্ন। লোকসভা ভোট মিটলেই এ রাজ্যের সরকার ভাঙতে শুরু করবে। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি ভিড়বেন বিধায়করা। তখন কিছুই করার থাকবে না মুখ্যমন্ত্রীর।

আরও পড়ুন : ৮১ বছর বয়সে প্রথমবার মায়ের দেখা পেলেন মেয়ে

সায়ন্তন বলেন, বিজেপির কোনো নেতাকর্মীর ওপর হামলা হলে আমাকে ফোন করবেন না। যারা আক্রমণ করতে আসবে তাদের পা খুলে নিন, তারপর আমাকে ফোন করবেন।

এর আগে তিনি শালীনতার সীমা ছাড়িয়ে বলেছিলেন, যদি কেউ বুথ দখল করতে আসেন, আর তিনি যদি শাহজাহান কিংবা আওরঙ্গজেবও হন, তাহলে সিআরপিএফকে বলে দেব গুলি যেন বুক লক্ষ্য করে যায়। এই মন্তব্যের জেরে সায়ন্তন বসুকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। ওয়ান ইন্ডিয়া।

এসআইএস/এমএস

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :