ডেঙ্গুর প্রকোপ ঢাবিতেও

রাজধানীর অন্যান্য এলাকার মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও (ঢাবি) ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছে। প্রতিনিয়তই কোনো না কোনো শিক্ষার্থী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে। সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ সেকশনের এক কর্মচারী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারের প্রধান মেডিকেল অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ডা. সারওয়ার জাহান মুত্তাকী জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাজধানীতে ডেঙ্গু যে মহামারি আকার ধারণ করেছে তার প্রভাব বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়ছে। প্রতিদিনই কোনো না কোনো শিক্ষার্থী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে। তারা এখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে যখনই মনে হচ্ছে ডেঙ্গু বা জটিল আকার ধারণ করছে তখন তারা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলসহ অন্যান্য হাসপাতালে যাচ্ছে। আবার সেসব হাসপাতালে সিট না পেলে অনেকে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে।’

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সবকটি হলেই কোনো না কোনো শিক্ষার্থী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। এদের অনেকে হল ছেড়ে বাসায় গিয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন। অনেকে ঢাকা মেডিকেলে ও বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকলে চিকিৎসা নিচ্ছেন। বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী ঢাকা মেডিকেল ও বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে ভর্তি আছেন।

গতকাল ঢাকা মেডিকেলের নতুন ভবনের ৬০১ নম্বর ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, আরিফুর রহমান নামে শিক্ষা ও গবেষণা বিভাগের এক শিক্ষার্থী বেডে কাতরাচ্ছেন। স্বজন ও সহপাঠীরা জানান আরিফের ডেঙ্গু হয়েছে। আরিফ, স্যার এ এফ রহমান হলের আবাসিক ছাত্র।

মো. শহীদুল্লাহ নামে অমর একুশে হলের এক শিক্ষার্থী বলেন, হলের গণরুমে গত সপ্তাহে ৫ শিক্ষার্থী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। এ ছাড়াও শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে মনির নামে এক শিক্ষার্থীর রক্তের প্লাটিলেট ১০ হাজারের নিচে নেমে এসেছে বলে তার সহপাঠীরা জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান মেডিকেল অফিসার বলেন, ‘ডেঙ্গুতে কতজন এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে তার কোনো নির্দিষ্ট ডাটা আমাদের কাছে নেই। তবে এখনো ১০ জন বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে ভর্তি আছে। গতকালও ডেঙ্গুর টেস্ট করিয়েছে ৫৬ জন শিক্ষার্থী। যদিও এখানে সবার ডেঙ্গু না। যদিও সবার ডেঙ্গু নয়, তবুও ভয় কাজ করছে শিক্ষার্থীদের মাঝে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য তৎপর রয়েছি। প্রতিনিয়তই হলে হলে ওষুধ ছেটানো হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেট অফিস থেকে এ ব্যাপারে সব হলের প্রাধ্যক্ষদের চিঠি দেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি হলগুলোও হলের অভ্যন্তরে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। এরপরও যদি কোনো শিক্ষার্থী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয় তাহলে প্রশাসন তার বিষয়ে দেখবে। আমরা আমাদের শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াবো।’

এমএইচ/এমআরএম/জেআইএম

টাইমলাইন  

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com